Open Sun - Tha 10:00-18:00
Email sales@shoppingfinance Call Now! 09639100300
Open Sun - Tha 10:00-18:00
Email sales@shoppingfinance Call Now! 09639100300

মদিনা বিশ্ববিদ্যালয়ে উচ্চ শিক্ষা

মদিনা বিশ্ববিদ্যালয়ে পৃথিবীর প্রায় ১৮০টি দেশের ছাত্র পড়াশোনা করেন।

সুযোগ সুবিধাসমূহ:

উচ্চ শিক্ষার উন্নত পরিবেশের পাশাপাশি একজন ছাত্রকে আর্থিক সুডোগ সুবিধাও দেওয়া হয়। উল্লেখযোগ্য কিছু সুবিধা হচ্ছে-

– বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীর ভিসা ও এয়ার টিকেট খরচ মদিনা বিশ্ববিদ্যালয় বহন করে।
– শিক্ষার্থীর শিক্ষা বেতন ও পরীক্ষা ফি মওকুফ।
– আধুনিক পরিচ্ছন্ন ছাত্রাবাসে ফ্রি আবাসন ব্যবস্থা।
– রেস্টুরেন্টে উন্নত খাবারের সুব্যবস্থা। খাবার বিলে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ নির্দিষ্ট হারে ভর্তুকি প্রদান।
– বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদেরকে প্রতিমাসে নির্দিষ্ট হারে (অনার্স, মাস্টার্স, পি.এইচ.ডি) ভাতা দেওয়া হয়।
– শিক্ষার্থী প্রতি বছর গ্রীষ্মকালীন ছুটি (প্রায় ৩/৪ মাস) কাটাতে দেশে যেতে পারেন। ভার্সিটি ভিসা-টিকেট খরচ বহন করে।

মদিনা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য করণীয়

– নতুন বছরের সেমিস্টারের শুরুতে বইপত্র ক্রয়ের জন্য নির্দিষ্ট হারে অর্থ দেওয়া হয়।
– যারা পরপর দুই সেমিস্টারে ‘মুমতাজ’ (জিপিএ-৫) ফলাফল অর্জনকারীকে অতিরিক্ত বৃত্তি দেওয়া হয়।
– বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব হসপিটালে বিনামূল্যে উন্নত চিকিৎসাসেবা দেওয়া হয়।
– বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ হতে হজ-ওমরা আদায় করানো হয় এবং বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ঐতিহাসিক ও দর্শনীয় স্থানসমূহে শিক্ষা সফরে নিয়ে যাওয়া হয়।
– মাস্টার্স ও পিএইচডি শিক্ষার্থীরা সস্ত্রীক মদিনায় বসবাসের সুযোগ পান।
– ক্যাম্পাস থেকে মসজিদে নববীতে যাতায়াতের জন্য ভার্সিটির নিজস্ব গাড়ির সুবিধা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুষদসমূহ:

বিশ্ববিদ্যালয়ে বর্তমানে মোট ৮টি অনুষদ, ২৩টি বিভাগ ও ৩টি মাহাদ (ইনস্টিটিউট) আছে।
– FACULTY OF ISLAMIC LAW (SHAREE’AH)
– FACULTY OF ISLAMIC PREACHING (DA’WAH) AND THEOLOGY (USOOL UD DEEN)
– FACULTY OF THE HOLY QURAN AND ISLAMIC STUDIES
– FACULTY OF PROPHETIC TRADITION (HADITH) AND ISLAMIC STUDIES
– FACULTY OF THE ARABIC LANGUAGE
– THE FACULTY OF SCIENCE
– THE FACULTY OF COMPUTER AND INFORMATION SYSTEM
– THE FACULTY OF ENGINEERING

আবেদনের শর্তসমূহ

এখানে একজন বিদেশি ছাত্রকে ভর্তি হতে হলে প্রথমে শিক্ষাবৃত্তির জন্য উপযোগী হতে হয়। এ জন্য আছে বেশকিছু শর্ত। যেমন-

– ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীর বয়স ২৫ বছরের কম হতে হবে এবং উচ্চ মাধ্যমিক সনদ উত্তীর্ণ সাল ৫ বছর অতিক্রম করতে পারবে না।
– সৌদি আরবের অন্যকোনো প্রতিষ্ঠান থেকে বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীর আবেদন গ্রহণীয় নয়।
– সৌদি আরবের অন্যকোনো বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কৃত শিক্ষার্থীর আবেদন গ্রহণযোগ্য নয়।
– সৌদি আরবের স্থানীয় আইন বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য। সুতরাং শিক্ষার্থীকে অবশ্যই তা মানতে হবে।
– সৌদি আরবের আইনের বাইরে কোনো প্রকার রাজনীতি, সন্ত্রাসবাদ ও চরমপন্থা অবলম্বন করা যাবে না এবং এসব বিষয়ে আলোচনাও করা যাবে না।
– বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নকালীন সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের তত্ত্বাবধানে থাকবে।
– বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের তাদের বৃত্তিকালীন নির্দিষ্ট কোর্স সম্পন্ন হলে দেশে ফিরে যেতে হবে।
– যারা জন্মগতভাবে মুসলিম না, তাদের ইসলামগ্রহণের সনদপত্র লাগবে।
– শিক্ষার্থীকে ইসলামিক বিশুদ্ধ আকিদা পোষণকারী এবং সালফে সালেহিনদের অনুসারী হতে হবে।

আবেদনের জন্য প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টসসমূহ:

– পাসপোর্ট

– জন্মনিবন্ধন

– মেডিকেল ফিটনেস এর সনদ

– সকল শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ (SSC/Dakhil, HSC/Alim)

– পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট

কওমি মাদরাসার শিক্ষার্থীরা যেভাবে আবেদন করতে পারবেন:

কওমি মাদরাসা শিক্ষার সরকারি স্বীকৃতি না থাকায় আগ্রহ থাকা সত্ত্বেও অনেক মেধাবী ছাত্র মদিনা ভার্সিটিতে আবেদন করতে পারেন না। এটা না জানার কারণে হয়। অথচ কওমি কর্তৃপক্ষ একটু চেষ্টা করলেই তাদের ছাত্রদের এখানে পাঠাতে সক্ষম। এমনকি এখানেও পিএইচডিও করতে পারবে।

ভার্সিটি প্রধানত সনদের ক্ষেত্রে সরকারের অনুমোদিত সনদ দেখে। কিন্তু দ্বিতীয় অপশন হিসেবে ‘মুআদালা’ নামক একটি সিস্টেম রয়েছে। অর্থাৎ আপনার প্রতিষ্ঠান যদি সরকারি সনদপ্রাপ্ত না হয়, কিন্তু মদিনা ভার্সিটির সঙ্গে দ্বি-পাক্ষিক শিক্ষা চুক্তি বা মুআদালা করা থাকে- তাহলে ওই প্রতিষ্ঠানের ছাত্ররাও আবেদন করতে পারবেন।

এ জন্য মাদরাসার কর্তৃপক্ষকে নির্দিষ্ট মুআদালা ফরম পূরণ করে চুক্তিবদ্ধ হতে হবে। কওমি মাদরাসাগুলোর মধ্যে চট্টগ্রামের দারুল মাআরিফ এমন একটি প্রতিষ্ঠান। এ ছাড়া বাংলাদেশে আহলে হাদিসদের পরিচালিত বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে মুআদালা করা আছে।

পরামর্শ:

মদিনা ভার্সিটিতে পড়তে ইচ্ছুক হলে আপনাকে দীর্ঘমেয়াদী টার্গেট নিতে হবে। হঠাৎ করে কিছু পাওয়া সম্ভব নয়। জেএসসি, এসএসসি (দাখিল) এইচএসসি (আলিম) পরীক্ষায় ভালো ফলাফলের পাশাপাশি আরবিতে দক্ষ হতে হবে।

Leave a Reply